যোগীর রাজ্যে খাদ্যের অভাবে, ক্ষুধার্ত ৫ শিশুকে গঙ্গা নদীতে ফেলে দিলেন মা

ক্ষুধার্ত সন্তানদের মুখে খাবার দিতে পারেনি এক অসহায় মা। কষ্ট সহ্য করতে না পেরে গঙ্গায় ফেলে দিল পাঁচ সন্তানকে। একেই নুন আনতে পান্তা ফুরোয় পরিবারে। তার ওপর এই লকডাউন যেন ‘মরার উপর খাঁড়ার ঘা ‘ হয়ে দাঁড়িয়েছে। লকডাউনের ফলে বন্ধ হয়েছে সবরকম আয়ের পথ। যে অল্প পরিমাণে খাবার পড়ে ছিল ঘরে ,তাও শেষ হয়েছে কয়েক দিনে। এরপর মা আর জোগাড় করতে পারেনি খাবার। অসহায় মা, সন্তানদের ক্ষিদের জ্বালা। শেষে পাঁচ সন্তানকেই ভাসিয়ে দিয়েছে গঙ্গায়।

 

এমনই এক মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে রবিবার। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের ভাদোহী জেলায়। লকডাউনের ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের গরিব মানুষ। তাদের একটা মোটা অংশের আয়ের পথ পুরোপুরি ভাবেই বন্ধ রয়েছে। সরকার সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিলেও ,সত্যিই কি সাহায্য পাচ্ছে সাধারণ মানুষ? প্রশ্নটা আরও গাঢ় হল উত্তরপ্রদেশের ভাদোহী জেলার এই ঘটনায়। করোনার থাবায় নাজেহাল গোটা পৃথিবী। চলছে লকডাউন।

 

এই দুর্দিনে সরকারের করনীয় সম্পর্কে সম্প্রতি একটি সুস্পষ্ট দিশা দিয়েছিলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ এবং ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন। কেন্দ্রের মোদী সরকারের প্রতি তাঁর পরামর্শ ছিল, এই মুহূর্তে সরকারি অর্থ খরচের ক্ষেত্রে গরিবদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে সরকারকে আরও বেশি করে গরিবদের পাশে দাঁড়াতে হবে। একটি জনকল্যাণকর রাষ্ট্রের এটাই প্রত্যাশিত বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। রাজনের এই বক্তব্য কতটা ভারতের বাস্তব পরিস্থিতির উপরে দাঁড়িয়ে আছে ,ভাদোহি জেলার এই মর্মান্তিক ঘটনা তা আরও একবার প্রকট করল।

 

এদিকে পুলিশের কাছে খবর পৌছনো মাত্র প্রসাশনের শীর্ষ আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌছোন। ঐ পাঁচ শিশুর খোঁজে গঙ্গায় শুরু হয়েছে তল্লাশি। অভিযুক্ত মহিলাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ বলে জানিয়েছেন পুলিশ। স্থানীয় সূত্রের সংবাদ অনুযায়ী, অভিযুক্ত মহিলা একজন দিন আনা দিন খাওয়া মজুর। লকডাউনের ফলে সব আয় বন্ধ হয়েছে ঐ মহিলার। সঞ্চিত যা কিছু অর্থ ও খাবার ছিল তাও শেষ হয়ে যায়। ফলে তাঁর নিজের এবং সন্তানদের অনাহারে দিন কাটছিল। ক্ষুধার্ত সন্তানদের কষ্ট সহ্য করতে না পেরে তিনি এই কাজ করেছেন বলে স্থানীয়দের জানান। যেখানে লকডাউনের কারণে রাজ্যের একজন ও অভুক্ত থাকবে না বলে ঢাক ঢোল পিটিয়ে প্রচার করছে উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকার। সেখানে এই মর্মান্তিক ঘটনা প্রান্তিক মানুষের বিপন্নতার ছবি আরও একবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল।