“অনুপ্রবেশকারীদের থেকে রাজ্যকে রক্ষা করব”, হুশিয়ারি অসমের মুখ্যমন্ত্রীর

জবরদখলকারী এবং অনুপ্রবেশকারীদের রেয়াত করা হবে না তা পরিষ্কার করে বুঝিয়ে দিলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা

যাঁরা অনুপ্রবেশকারী (intruders) এবং জবরদখলকারী (encroachers) তাঁদের কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়ে সতর্ক করে দিলেন Assam-এর মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা
অসমের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আমাদের রাজ্যকে এই সব জবরদখলকারী এবং অনুপ্রবেশকারীদের থেকে রক্ষা করব’অ

অনেকসময়েই অভিযোগ আসে যে অনুপ্রবেশকারীরা অসমের বিভিন্ন এলাকাতে ঢুকে পড়ে জায়গা জরবদখল করে বসবাস করছেন। এর আগে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে নানা রকম উদ্যোগ নেওয়া হলেও তা যে সব ক্ষেত্রে কার্যকর হয়নি তা মেনে নিয়েছ অসমের প্রশাসন। কিন্তু, এবার যে আর এই সব জবরদখলকারী এবং অনুপ্রবেশকারীদের রেয়াত করা হবে না তা পরিষ্কার করে বুঝিয়ে দিলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

আরও পড়ুন-কয়েক মাস আগে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন নুসরাত জাহান?

যাঁরা অনুপ্রবেশকারী (intruders) এবং জবরদখলকারী (encroachers) তাঁদের কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়ে সতর্ক করে দিলেন Assam-এর মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা (Himanta Biswa Sarma)। অসমের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আমাদের রাজ্যকে এই সব জবরদখলকারী এবং অনুপ্রবেশকারীদের থেকে রক্ষা করব। এই রাজ্যের বাসিন্দাদের নিজস্ব যে জাতিস্বত্তা এবং পরিচিত তা আমাদের রক্ষা করতে এবং বাঁচাতে হবে। আমরা এই রাজ্যে জবরদখলকারী এবং অনুপ্রবেশকারীদের কোনও রকম জায়গা দেব না। পুরো রাজ্য থেকেই যারা জবরদখলকারী এবং অনুপ্রবেশকারী তাদের উচ্ছেদ করা হবে।’

আরও পড়ুন-সুশান্তের বাবার যুক্তি গ্রহন করল না দিল্লি হাইকোর্ট, বিস্তারিত জানুন

অসমের মুখ্যমন্ত্রী গিয়েছিলেন Sipajhar, Darrang এলাকায়। নদীপথে , দেশীয় নৌকা করে পুরো এলাকা পরিদর্শন করেন তিনি। তাঁর সঙ্গে ছিলেন অসমের শিল্পমন্ত্রী Chandra Mohan Patowary, BJP বিধায়ক Paramananda Rajbhonshi এবং প্রাক্তন বিধায়ক Gurujyoti Das।

আরও পড়ুন-মুকুলের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পনা অবসান,বড়সড় ইঙ্গিত দিলেন সৌগত

হিমন্ত বিশ্ব শর্মা জানিয়েছেন যে তিনি নদীপথে Sipajhar, Darrang এলাকার গৌরকাটি এলাকা পরিদর্শন করেছেন এবং নৌকা থেকে নদী তীরবর্তী এলাকাও দেখেছেন। জানান, সেখানের ঢোলপুর এলাকাতে যে শিবমন্দির আছে, সেই মন্দিরের প্রায় ১২০ বিঘা জমির জায়গা অনুপ্রবেশকারীরা জবরদখল করে নিয়েছিল। পুলিশ এবং প্রশাসনের সহায়তায় তাদের সেখান থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর পরেই অসমের মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘এই রাজ্যের আরও যে সব জায়গাতে অনুপ্রবেশকারী এবং জবরদখলকারীরা আছে তাদের সকলকেই উচ্ছেদ করা হবে।’

আরও পড়ুন-নারদ মামলায় মুখ্যমন্ত্রীর হলফনামা গ্ৰহণ করল না কলকাতা হাই কোর্ট

ওই মন্দিরে পুজো দিয়েছেন তিনি। মন্দির কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে এই এলাকাকে কী করে পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তোলা যায় তা নিয়েও কথা বলেছেন।